1. [email protected] : editor :
  2. [email protected] : foysal parveg : foysal parveg
  3. [email protected] : shakil007 :
শৈশবে ভালবাসা পায়নি বলে ওরা বিপথে - মাগুরার খবর
বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ১০:৪২ অপরাহ্ন

শৈশবে ভালবাসা পায়নি বলে ওরা বিপথে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিতঃ বুধবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২০

 

কয়েকটি অপরাধে মাগুরায়  দুজন কিশোর জেল খাটে দশদিন। সাজার শুরুতে তাদের পরনে শুধু হাফপ্যান্ট ছাড়া আর কিছু ছিল না।  মুখে ছিল বিষন্নতা,কৈশরের ছাপ। ১৭-১৮ বছরের এই দুজন কিশোর ছোটবেলা থেকে নানাবিধ  অপরাধে জড়িয়ে পড়ে কেন !প্রশ্নটা বারবার মাগুরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সুফিয়ানের  মনে দাগ কাটতে থাকে।
তাদের বয়স ও চেহারায় মলিনতা দেখে তাঁর মনে হয়েছে অপরাধে জড়িয়ে যাওয়াতে কোথাও ঘাটতি রয়েছে দুজনের।
তাই আটকের শুরুতে এ দুজন কিশোরের সাথে  কথা বলেন তিনি।কিশোর দুজন জানায়, জন্মের পর থেকে তাদের আপনজনেরা তাদের সঠিক পথ দেখায়নি।অর্থের লোভে ঠেলে দিয়েছে চুরি,মাদকের মত অপরাধের দিকে। তারা শৈশবে ভালবাসা,আদর স্নেহ ছাড়াই কিশোর বয়েসে চলে এসেছে। তাই তারা বুঝতেই পারেনি অপরাধের সাথে তারা বড় হয়ে যাচ্ছে।
তাদের  শৈশবের বঞ্চনা আর লাঞ্চনা কথা শুনে এই দুই কিশোরকে ইউএনও বলেছিলেন,সাজা খাটার পরে আমার সাথে দেখা করো।
সাজার মেয়াদ শেষে  বুধবার তারা দুজন দেখা করতে যায় সদর উপজেলা পরিষদে নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে।
এই কর্মকর্তা তাদের বুকে টেনে বলেন,তোমরা কথা দাও এরকম বাজে কাজ আর করবে না। তারাও কথা দেয় আবেগপ্রবন হয়ে।
এরপর তাদের দুজনের পছন্দসয় কিছু জামাকাপড় ও হাতখরচের কিছু অর্থ হাতে দেন ।
দু কিশোর এই স্নেহ আর ভালবাসায়  অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়ে। ইউএনও বলেন,তোমরা লেখাপড়া করবে।মানুষের মতন মানুষ হবে। কোন সমস্যায় পড়লে আমার সাথে দেখা করবে।
 ইউএনও আবু সুফিয়ান বলেন,কিশোর অপরাধের একটা বড় অংশই পরিবারের স্নেহ ছাড়া, ভালবাসাহীন ভাবে বেড়ে ওঠা।ইতিপূর্বে এরকম অনেকের সাথে কথা বলেছি আমি। প্রায় কিশোরই ছোট থাকতে  হয় পরিবারে অসুস্থ্য পরিবেশে মানুষ হয়ে অপরাধে জড়িয়েছে।
না হয় পরিবার ছাড়া রাস্তায় থেকে থেকে বড়দের সংস্পর্ষে মিশে অপরাধে জড়িয়েছে। কিশোরদের  নানা সময়ে অপরাধে  আটকের পর জেল জরিমানা হয়। কিন্তু ছাড়া পেয়ে আবার দেখা যায় তারা অপরাধে জড়িয়ে যাচ্ছে।
তিনি বলেন,আমরা যদি সবাই মিলে এদের পাশে দাঁড়াই। স্নেহ মমতা দিয়ে বড় হতে সহযোগিতা করি তবে সমাজে কিশোর অপরাধ অনেকাংশে কমে আসবে।

খবরটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
© সর্বস্বত্ব -২০১৯- ২০২০ মাগুরার খবর.    কারিগরি ব্যবস্থাপনায় - মাগুরা আইটি সল্যুশন 

কারিগরি সহায়তায়ঃ আইটি বাজার
error: মাগুরার খবর সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত