1. [email protected] : editor :
  2. [email protected] : foysal parveg : foysal parveg
  3. [email protected] : shakil007 :
মাগুরার নন্দলালপুরের লিটন হত্যার ঘটনায় ৩১ জনের নামে মামলা - মাগুরার খবর
শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:২৪ পূর্বাহ্ন

মাগুরার নন্দলালপুরের লিটন হত্যার ঘটনায় ৩১ জনের নামে মামলা

মাগুরার খবর ডটকম
  • প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২০
জাকির হোসেন লিটন। ছবিঃ সংগৃহীত।

মাগুরায় প্রতিপক্ষের হামলায় নন্দলালপুর গ্রামের জাকির হোসেন লিটন নিহতের ঘটনায় মামলা করেছে তার পরিবার। ৩১ জন আসামীর নাম উল্লেখ করে বুধবার রাতে হত্যা মামলাটি দায়ের করেছেন নিহতের ছেলে মুন্সী শামুছুদ্দিন ওরফে নিঝুম। সোমবার (১৬.১১.২০২০) রাতে সদর উপজেলার হাজরাপুর ইউনিয়নের নন্দলালপুর গ্রামে ওই ব্যাক্তির ওপর হামলা হয়। রাতেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান লিটন।

মামলায় এক নাম্বার আসামী করা হয়েছে নন্দলালপুর গ্রামের কওসার মোল্লার ছেলে শরিফুল ইসলাম ওরফে শরিকে। তার নেতৃত্বে হামলা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে এজাহারে। মামলায় অন্য আসামীদের মধ্যে রয়েছেন শরিফুল ইসলাম শরির ভাই মিজানুর রহমান, ইছা মোল্লা, নজরুল ইসলাম ও মনিরুল ইসলাম। একজনসহ নন্দলালপুর ও গৌরিচরনপুর গ্রামের মোট ৩১ জনের নাম উল্লেখ করে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে বাদি উল্লেখ করেছেন, পূর্ব বিরোধের জেরে ঘটনার দিন রাত ৯টার দিকে জাকির হোসেন লিটনের ওপর সশস্ত্র হামলা চালানো হয়। জীবন বাঁচাতে লিটন ছুটে নিজ বাড়িতে আশ্রয় নিলেও সেখানে গিয়ে নির্বিচারে তাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে মাগুরা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে চিকিৎসকরা আহত লিটনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। ফরিদপুর যাওয়ার পথে মারা যায় সে।

স্থানীয়রা অবশ্য বলছেন, খুন হয়েছে মূলত রাজনৈতিক বিরোধ ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে। তাঁরা জানান, জাকির হোসেন লিটন এক সময় বিএনপি কর্মী ছিলেন। গত কয়েক বছর সে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা শরিফুল ইসলামের সঙ্গে সামাজিক দলভূক্ত ছিল। শরিফুল ইসলাম সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান সমর্থিত সামাজিক দলের নেতা। এমন পরিস্থিতিতে, গত ২৯ সেপ্টেম্বর লিটন বেশকিছু লোকজন নিয়ে শরিফুলের সামাজিক দল ছেড়ে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেনের দলে যোগ দেয়। শুধু তাই নয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিনে সে ফুলের মালা নিয়ে বিএনপির রাজনীতি ছেড়ে আনুষ্ঠানিকভাবে আওয়ামী লীগেও যোগ দেয়। কিন্তু তার সামাজিক দল পরিবর্তনের এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয় শরিফুল ইসলাম গ্রুপ। যা নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিল।

মাগুরা সদর থানার ওসি জয়নাল আবেদিন জানান, অনধিকার প্রবেশ করে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট, সাধারণ ও গুরুতর জখম, হত্যাসহ হুমুকদানের অপরাধে মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত কাওকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। তবে আসামীদের ধরতে জোরালো অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

এই বিভাগের আরো খবর

error: মাগুরার খবর সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
© সর্বস্বত্ব -২০১৯- ২০২০ মাগুরার খবর.    কারিগরি ব্যবস্থাপনায় - মাগুরা আইটি সল্যুশন 

কারিগরি সহায়তায়ঃ আইটি বাজার
error: মাগুরার খবর সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত